ঠাকুরগাঁওয়ে বিলুপ্তির পথে ঐতিহ্যবাহী গ্রামীণ খেলা

ঠাকুরগাঁওয়ে বিলুপ্তির পথে ঐতিহ্যবাহী গ্রামীণ খেলা

মো: আল ফয়সাল অনিক, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: গ্রামীণ বাংলার গোল্লাছুট, বৌছি, কানামাছি, হাডুডু, কুতকুত, ডান্ঠাগুলি, নৌকা বাইচ এসব খেলার নাম শুনেন নি এমন মানুষ কমই আছে। এসব ঠাকুরগাঁওয়ের ঐতিহ্যবাহী গ্রামীণ খেলা। এক সময় এই খেলাগুলো ছিল গ্রামীণ বাংলার বিনোদনের অন্যতম মাধ্যম। বর্তমানে গ্রামঞ্চলে ঘুরেও চোখে পড়ে না জনপ্রিয় খেলাগুলো। এসব খেলাগুলো এখন শুধুমাত্র গল্প হয়েগেছে। যেন জাদুঘরেই চলে গেছে বাংলার এই ক্রীড়া সংস্কৃতি। কিছু কিছু জায়গায় অবশ্য মাঝে মাঝে স্থানীয় লোকজন আয়োজন করে বাংলার এই গ্রামীণ খেলা। তবে স্থায়ী কোন পৃষ্টপোষকতা না থাকার কারণে সেই আয়োজনও কমে যাচ্ছে। গ্রামীণ খেলাধুলার আলাদা কোন ফেডারেশন না থাকার কারণে একত্রিত হতে পারছেনা শিশুরা। এসব খেলা বাঁচাতে আলাদা ফেডারেশনের বিকল্প কিছু নেই। জনসংখ্যা বৃদ্ধির কারণে ফাকা জায়গা সংকুচিত হওয়া। স্মার্ট ফোনে ভিডিও গেমস খেলার কারণে এসব খেলা বিলুপ্তির পথে মনে করেন সংশ্লিষ্ট ক্রীড়া প্রেমীরা।
প্রভাষক জাহাঙ্গীর আলম জানান, গ্রামীণ খেলাধুলা সম্পর্কে ধারণা আছে এমন শিশুর সংখ্যা দিন দিন কমছে। শিশুরা তাদের বাবা-মা, দাদা-দাদী কাছ থেকে শুধু গল্প শুনে মাত্র। গ্রামীণ এসব খেলাধুলা তাদের কাছে হারানো ঐতিহ্য। ছোট বেলায় খেলাধুলা যেমন শারীরিক সুফল দেয়, তেমনি মানসিক সুফলও আসে। সুস্থ দেহের সঙ্গে সুস্থ মানসিক বিকাশ ও গড়ে উঠে। তাই অভিভাবকদের উচিত সন্তানদের মাদক থেকে বিরত থাকতে এবং খেলার প্রতি উৎসাহ প্রদান করা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*