জামালপুর জেলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় উপজেলা ভিত্তিক শুন্যপদ পূরণে বৈষম্যের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

জামালপুর জেলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায়
উপজেলা ভিত্তিক শুন্যপদ পূরণে বৈষম্যের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন
রোকনুজ্জামান সবুজ , জাামালপুর প্রতিনিধি ঃ জামালপুর জেলার ৭টি উপজেলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় ২২২টি শুন্যপদ পূরণে উপজেলা ভিত্তিক আনুপাতিক হার বিবেচনা করা হয়নি । উপজেলা ভিত্তিক বৈষম্যের নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অন্যায়ভাবে চাকুরী থেকে বঞ্চিত করার অভিযোগে বৃহস্পতিবার সকালে সংবাদ সম্মেলন করেছে মাদারগঞ্জ উপজেলার ১৬জন চাকুরী প্রার্থী। তারা এই নিয়োগ প্রক্রিয়াটি স্থগিত করে অবিলম্বে উপজেলা ভিত্তিক শুন্যপদ পূরণের আনুপাতিক হার বিবেচনা করার দাবী জানিয়েছেন।
মাদারগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চত্বরে জেলা পরিষদ ডাকবাংলো মিলনায়তনে অনুষ্টিত সংবাদ সম্মেলনে চাকুরী প্রার্থী রুপালী লিখিত বক্তব্য পাঠে জানান, জামালপুর জেলার ৭টি উপজেলার বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকের শুন্যপদ পূরণের নিমিত্তে গত ২০১৪ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। ওই নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি মূলে গত ৮ জুলাই লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওই লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ৩৬৯ জন প্রার্থীদের গত ১ আগষ্ট থেকে গত ৪ আগষ্ট পর্যন্ত জামালপুরে মৌখিক পরীক্ষার সাক্ষাতকার অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ নিয়োগ প্রক্রিয়ায় চুড়ান্ত ভাবে নির্বাচিত ১২৩ জন চাকুরী প্রার্থীর একটি তালিকা গত ১০ সেপ্টেম্বর প্রকাশ করা হয়েছে। এতে জামালপুর জেলার ৭টি উপজেলার ২২২টি শুন্যপদ পূরণের ক্ষেত্রে উপজেলা ভিত্তিক শুন্যপদ পূরণের আনুপাতিক হার বিবেচনা করা হয়নি। এ নিয়োগ প্রক্রিয়ায় উপজেলা ভিত্তিক শুন্যপদ পূরণের নিয়োগ বৈষম্য করা হয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে চাকুরী প্রার্থী আরো জানান, জামালপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কার্যালয়ের তালিকা অনুযায়ী জামালপুর সদর উপজেলায় ২৮ জন, মাদারগঞ্জ উপজেলায় ১১ জন, দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় ২০ জন, মেলান্দহ উপজেলায় ৮ জন, সরিষাবাড়ী উপজেলায় ২৫ জন, ইসলামপুর উপজেলায় ১৭ জন এবং বকশীগঞ্জ উপজেলায় ১৪ জনকেসহ সর্বমোট ১২৩ জনকে চুড়ান্ত ভাবে নির্বাচিত করা হয়েছে। অথচ জেলার বিভিন্ন উপজেলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকের শুন্যপদ রয়েছে ২২২টি। তন্মধ্যে জামালপুর সদর উপজেলায় ৩৪টি, মাদারগঞ্জ উপজেলায় ৮০টি, দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় ১৯টি, সরিষাবাড়ী উপজেলায় ১২টি, ইসলামপুর উপজেলায় ৫৭টি এবং বকশীগঞ্জ উপজেলায় ২০টিসহ সর্বমোট ২২২টি শুন্যপদ রয়েছে। এসব শুন্যপদ পূরণে উপজেলা ভিত্তিক শুন্যপদ পূরণের আনুপাতিক হার বিবেচনা করা হয়নি। এছাড়াও জেলার মেলান্দহ উপজেলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকের কোন শুন্য পদ না থাকা সত্বেও মেলান্দহ উপজেলার ৮জন প্রার্থীকে চুড়ান্ত ভাবে নির্বাচিত করা হয়েছে। ওই সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মাদারগঞ্জ উপজেলার চাকুরী প্রার্থী ইমরান কায়েস, শাাহানাজ পারভীন, নাসিয়ানা সুলতানা, সারমীন নাহার সীমা প্রমুখ।
বক্তারা জামালপুর জেলার ২২২টি শুন্যপদ পূরণে উপজেলা ভিত্তিক আনুপাতিক হার বিবেচনা করে স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় সহকারী শিক্ষক পদের নিয়োগ চুড়ান্ত করার দাবী জানিয়েছেন।
এব্যাপারে জামালপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোা. শহীদুল ইসলাম জানান, সরকারী চাকুরী বিধি অনুযায়ী মেধা মুল্যায়নের স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় নিয়োগ কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে। জামালপুর জেলার ২২২টি শুন্যপদ পূরণে উপজেলা ভিত্তিক আনুপাতিক হার বিবেচনা করার ব্যাপারে সংম্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কোন নির্দেশনা নিয়োগ বিধিতে নেই বলেও তিনি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*