নরসিংদীর শিবপুরে পুলিশ ও জনতার সংঘর্ষে দুই পুলিশসহ আহত ৪

নরসিংদীর শিবপুরে পুলিশ ও জনতার সংঘর্ষে দুই পুলিশসহ আহত ৪

শেখ মানিক, নরসিংদী প্রতিনিধি : নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে ইট বোঝাই ট্রলি আটক কে কেন্দ্র করে জনতার সাথে হাইওয়ে পুলিশের সঙ্ঘে সংঘর্ষ হয় এতে দুই পুলিশ সদস্য সহ চার জন আহত। এক কলেজ ছাত্র ও স্থানীয় একজন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। গুরুতর আহতবস্থায় তাদেরকে প্রথমে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়, অবস্থার অবনতি হলে পরবর্তিতে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। ১৪ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০ টার সময় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের শিবপুর উপজেলার চৈতন্যা বাসষ্ট্যান্ড সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন ইটাখোলা হাইওয়ে পুলিশ ফাড়ির কনস্টেবল মাহবুবুর রহমান (৩২) বিল্লাল হোসেন (৩৫)। পুলিশের এলোপাথারি গুলিতে আহত হয়েছে সবুজ পাহাড় কলেজের শিক্ষার্থী খোরশেদ মিয়ার ছেলে অহিদুল্লাহ (১৯) ও বাচ্চু মিয়ার ছেলে মোহন মিয়া (৩৫)। উভয়ের বাড়ী শিবপুর উপজেলার চৈতন্যা গ্রামে। এলাকাবাসী জানান, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ইটবোঝাই একটি ট্রলি মহাসড়ক দিয়ে যাওয়ার সময় টহলরত হাইওয়ে পুলিশ ট্রলিটিকে আটক করে নিয়ে যাওয়ার সময় ট্রলিটি সাইড করতে গিয়ে রাস্তার পাশে গর্তে আটকে যায়। বহু চেষ্টা করে ট্রলিটিকে উঠানো যাচ্ছিল না। এসময় পুলিশ গাড়ীটিকে মহাসড়কের পাশ থেকে সরিয়ে নিতে চালককে তাড়া দেয়। কিন্তু কোন ভাবেই ট্রলি গাড়িটিকে উঠাতে পারছিলনা চালক। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে হাইওয়ে পুলিশ সদস্যরা ট্রলির চালককে বেদম মারপিট করতে থাকলে মহাসড়কের পাশে বসা ফলের দোকানদার ও উপস্থিত এলাকাবাসী এ ঘটনার প্রতিবাদ করলে তাদের উপরও চড়াও হয় পুলিশ। গ্রামবাসীর প্রতিবাদের মুখে টিকতে না পেরে বাধ্য হয়ে পুলিশ পিছু হটে । পরবর্তিতে ইটাখোলা হাইওয়ে পুলিশ ফাড়ি থেকে অতিরিক্ত পুলিশ নিয়ে এসে সেখানে গ্রামবাসীর উপর চড়াও হয়ে রাস্তার পাশের দোকান ভাংচুর করলে এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে তীব্র সংঘর্ষ বেধে যায়। পুলিশ গ্রামবাসীকে লক্ষ্য করে গুলি বর্ষণ করে এতে দুই জন গ্রামবাসী গুলিবিদ্ধ হয়, পরে এলাকাবাসী ক্ষিপ্ত হয়ে পুলিশের উপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে দুই পুলিশ আহত হন। সংবাদ পেয়ে শিবপুর মডেল থানা পুলিশ ও ভৈরব হাইওয়ে পুলিশ ঘটনা স্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। বর্তমানে এলাকা শান্ত রয়েছে। ইটাখোলা হাইওয়ে ফাড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান জানান মহামান্য হাইকোটের নির্দেশে রাস্তায় বেআইনি যানবাহন চলাচল বন্ধের জন্য পুলিশ ঘটনা স্থল গেলে গ্রামবাসীরা পুলিশের উপর আক্রমন করে এবং পুলিশের দুটি রাইফেল ছিনিয়ে নিয়ে যায় । পরবর্তিতে অপর আরেকটি হাইওয়ে পুলিশ টিম গিয়ে সর্টগানের গুলি চালিয়ে রাইফেল দুটি উদ্ধার করে। এ ব্যপারে মামলার জন্য প্রস্তুতি চলছে। শিবপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ জানান, ঘটনা স্থল শান্ত রয়েছে তবে কোন পক্ষ থেকে এখনো পর্যন্ত মামলা হয়নি। শিবপুরের স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ¦ সিরাজুল ইসলাম মোল্লা সংবাদ পেয়ে ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*