শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নড়িয়ার মানুষের পাশে সর্বশক্তি দিয়ে আছি

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নড়িয়ার মানুষের পাশে সর্বশক্তি দিয়ে আছি
: এনামুল হক শামীম
শরীয়তপুর প্রতিনিধি: আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নড়িয়ার মানুষের পাশে সর্বশক্তি দিয়ে প্রথম থেকেই আছি, আগামীতেও থাকবো। আর পদ্মার ভাঙন রক্ষায় যা যা করণীয় তা করবেন প্রধানমন্ত্রী। এদেশের মানুষের সকল মানবিক বিপর্যয়, দূযোগ-দূর্বিপাকে আওয়ামীলীগ পাশে ছিল, আগামীতেও থাকবে।
তিনি আরও বলেন, আওয়ামীলীগ গণমানুষের দল, তাদের জন্যই আওয়ামীলীগের রাজনীতি। মানুষের সেবাই শেখ হাসিনার রাজনীতির মূলমন্ত্র। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকতে এদেশের একজন মানুষও না খেয়ে মারা যাবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মায় ভাঙন কবলিত এলাকার নিয়মিতই খোঁজ খবর নিচ্ছেন। একনেকে অনুমোদন হওয়া প্রায় ১ হাজার ২২২ কোটির টাকার পদ্মা নদীর ডান রক্ষা প্রকল্পের কাজ পানি কমলেই শুরু করা হবে।
শুক্রবার সকালে শরীয়তপুরের নড়িয়ার ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শনকালে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি হাজ্বী ওহাব বেপারী, হাবিবুর রহমান সিকদার, কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক জহির সিকদার, সৈয়দ হেমায়েত হোসেন, আক্তারুজ্জামান জুয়েল, জেলার আইন সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান এমএ কাইয়ুম, নড়িয়া পৌরসভার মেয়র শহিদুল ইসলাম বাবু রাড়ী, উপজেলা মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান নাজমা মোস্তফা, সখিপুর থানা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আতিকুর রহমান মানিক সরকার, জেলার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক কাওসার আহমেদ তকি, ইউপি চেয়ারম্যান আবু মুসা হিমু মুন্সী, আবুল হাসেম দেওয়ান, খন্দকার আলী হোসেন, হাজ্বী শওকত বয়াতী, সাবেক চেয়ারম্যান নুর ঈমাম হোসেন দেওয়ান, জেলা পরিষদের সদস্য আলী আহম্মেদ কাজী, আলমগীর হোসেন, মিজানুর রহমান আলম, আওয়ামীলীগ নেতা কবির সরদার, যুবলীগ নেতা খালেক খালাসী, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতা নুর এ আলম আশিক, নড়িয়া পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক আসাদুজ্জামান বিপ্লব প্রমূখ। এছাড়াও শুক্রবার বাদ জুমা মুলফৎগঞ্জ মাদরাসা ও নড়িয়া উপজেলা জামে মসজিদ সহ বিভিন্ন মসজিদে পদ্মার ভাঙনরোধে মিলাদ, দোয়া ও তবারকের আয়োজন করা হয়। উল্লেখ্য, আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীমের মায়ের নামে প্রতিষ্ঠিত সংগঠন বেগম আশ্রাফুন্নেছা ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে ভাঙন কবলিত তিন সহা¯্রাধিক পরিবারের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী ও শাড়ি-লুঙ্গি বিতরণ করা হয়েছে। আর ত্রাণ বিতরণের ধারাও অব্যাহত রেখেছে এ সংগঠন। ইতিপূর্বে সকল বন্যা ও প্রাকৃতিক দূযোগে ত্রাণ বিতরণ, শীতকালে শীতার্তদের শীতবস্ত্র, শিক্ষার্থী বৃত্তি প্রদান ও কম্পিউটার বিতরণ সহ নানান ধরনের সহযোগিতা করা হয় এ সংগঠণের মাধ্যমে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*