বকশীগঞ্জে বাবুল চিশতি ও তার স্ত্রীসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সম্পত্তি বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা জারি

বকশীগঞ্জে বাবুল চিশতি ও তার স্ত্রীসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সম্পত্তি বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা জারি

স্টাফ রিপোর্টারঃ বাবুল চিশতি ও তার স্ত্রী রোজী চিশতিসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সম্পত্তি বিক্রির উপর নিষাধাজ্ঞা নিয়ে নোটিশ দিয়েছে সাবরেজিস্টার অফিস বকশীগঞ্জ। ১৮ সেপ্টম্বর এ নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। বকশীগঞ্জ সাবরেজিষ্টার স্বাক্ষরিত নোটিশে জানানো হয়, অত্র কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট দলিল লেখক ও জনসাধারনের অবগতির জন্য জানানো যাইতেছে যে, মহানগর দায়রা জজ আদালত, ঢাকা এর আদেশ নং-০১ তারিখ ২৯/০৮/২০১৮ এবং প্রশাসনিক কর্মকর্তা, মহানগর দায়রা জজ আদালত, ঢাকা এর স্মারক নং জিএমএসজে/২৭০৯৯(৩), তারিখ ০৩/০৯/২০১৮ এবং জেলা রেজিষ্টার, জামালপুর মহোদয়ের স্মারক নং ১৭৩৫(৮), তাং ০৬/০৯/২০১৮ খ্রিঃ মোতাবেক ১। মোৎ মাহবুবুল হক চিশতি ওরফে বাবুল চিশতি, সাবেক চেয়ারম্যান, অডিট কমিটি, দি ফারর্মাস ব্যাংক লিঃ, ২। রুজি চিশতি, স্বামী মাহাবুবুল হক চিশতী ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যদেও নামে যে কোন প্রকার সম্পত্তি ক্র বিক্রয় ক্রোক বা অবরুদ্ধকরণ আদেশ প্রদান করা হইয়াছে। বিধায় তাদেও নামীয় সম্পত্তি দলিল, ফ্লাট ও বাড়ি বিক্রয় নিষিদ্ধ করিয়া আদেশটি বাস্তবায়নের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করার নির্দেশ প্রদান করা হইল। আদালত সূত্র জানায়, গত ১০ এপ্রিল দুদুকের দায়েরকৃত মামলায় বাবুল চিশতি ও তার ছেলেসহ ৪জনকে আটক করে দুদক। পরে ২৬ এপ্রিল দুই দফার রিমান্ড শেষে বাবুল চিশতীকে আদালতে হাজির করা হলে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। অপরদিকে এ মামলায় ১৮ এপ্রিল রিমান্ড শেষে বাবুল চিশতীর ছেলে রাশেদুল হক চিশতীসহ তিন আসামিকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। অপর দুই আসামি হলেন- ব্যাংকের ফার্স্ট প্রেসিডেন্ট মাসুদুর রহমান খান ও এসভিপি জিয়া উদ্দিন আহমেদ। ১০ এপ্রিল দুপুরে দুদকের উপপরিচালক সামছুল আলমের নেতৃত্বাধীন একটি দল রাজধানীর সেগুনবাগিচা এলাকা থেকে আসামিদের গ্রেফতার করে। এর আগে রাজধানীর গুলশান থানায় অর্থ পাচারের অভিযোগে ছয়জনকে আসামি করে মামলা করে দুদক। মামলায় ২৫টি ব্যাংক হিসাব খুলে ১৫৯ কোটি ৯৫ লাখ ৪৯ হাজার ৬৪২ টাকা স্থানান্তর ও লেয়ারিংয়ের মাধ্যমে হিসাবগুলোতে গ্রহণ ও নিজেদের (আসামিদের) নামে ব্যাংক শেয়ারের মূল্য পরিশোধের মাধ্যমে সন্দেহজনক লেনদেনের অভিযোগ আনা হয়। পরে অর্থপাচারের মামলায় ফারমার্স ব্যাংক লিমিটেডের অডিট কমিটির প্রাক্তন চেয়ারম্যান মো. মাহবুবুল হক চিশতী ওরফে বাবুল চিশতী ও তার স্ত্রী রুজী চিশতীর সম্পদ ক্রোকের আদেশ দিয়েছেন আদালত। মামলার তদন্ত কর্মকর্তার এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২৯ আগষ্ট বুধবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ এ আদেশ দেন। এর আগে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচালক মো. সামছুল আলম আসামিদের সম্পদ ক্রোকের আবেদন করেন। আবেদনটি গ্রহণ করে আদালত বাবুল চিশতী ও তার স্ত্রী রুজী চিশতীর যাবতীয় সম্পদ ক্রোকের আদেশ দেন। এরই প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার বাবুল চিশতি ও তার স্ত্রী রুজি চিশতিসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সম্পত্তি বিক্রয়ের উপর নিষেধাজ্ঞা দেয় বকশীগঞ্জ সাব রেজিষ্টার অফিস। যেসব সম্পদ ক্রোকের আদেশ : ফারমার্স ব্যাংক লিমিটেডের শেয়ার, মূল্য ৪০ কোটি টাকা; জামালপুরের বকশীগঞ্জে এক একর জমির ওপর রাশেদ রিমি ফিলিং স্টেশন; জামালপুরে বকশীগঞ্জ উত্তর প্রাইমারি স্কুলের পাশে নির্মাণাধীন ১০তলা বিল্ডিং; জামালপুরের বকশীগঞ্জ উত্তর পাটহাটীতে ৬তলা ফারমার্স ব্যাংক ভবন; জামালপুরের বকশীগঞ্জে ৫০ একর জমির ওপর চর কাউনিয়া বকশীগঞ্জ জুট মিলস, আরসিএল প্লাস্টিক ফ্যাক্টরি, ফিউশন সুজ ফ্যাক্টরি; ময়মনসিংহ শহরে ন্যাশনাল ব্যাংক ভবনের ওপর তলায় একটি বিলাসবহুল ফ্ল্যাট; ময়মনসিংহ শহরে ফারমার্স ব্যাংক ভবনে দুটি বিলাসবহুল ফ্ল্যাট; ময়মনসিংহ শহরে খাছিঝুলি এলাকায় রুজী চিশতীর ভিলা নামে ৯তলা বাড়ি; ময়মনসিংহ শহরে পুলিশ লাইনের পাশে বাবুল চিশতী ও তার শ্যালক মোস্তফা কামাল চেয়ারম্যানের নামে ৫০ শতাংশ জমি; রাজধানীতে মহাখালী নিউ ডিওএইচএস রোড নং-৩০, বাড়ি নং-৪১৯ ঠিকানায় একটি ডুপ্লেক্স বাসা এবং ঢাকার মিরপুর-১২তে বকশীগঞ্জ টাওয়ার নামে ৭তলা বাড়িসহ অন্যান্য সম্পদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*