গিকা চৌধুরীর বাড়ির মালামাল জব্দ করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত

গিকা চৌধুরীর বাড়ির মালামাল জব্দ করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত

নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটূক্তি করার অভিযোগে করা মামলায় বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীর বাড়ির মালামাল আইনত বাজেয়াপ্ত করণের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। বুধবার বিকালে (১০ অক্টোবর) চট্টগ্রাম মহানগরের তৃতীয় চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন এ রায় দেন। জানা গেছে, গত ২৯ মে বিকালে ফটিকছড়ি উপজেলা সদরের একটি কমিউনিটি সেন্টারে বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৩৭ তম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও ইফতারের আয়োজন করে স্থানীয় বিএনপি। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরী। ওই সভায় তিনি প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটূক্তি করেন। প্রধানমন্ত্রীর পরিণতি বঙ্গবন্ধুর চেয়েও খারাপ হবে বলে মন্তব্য করেন গিয়াস কাদের। তিনি তরীকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারীকে নিয়ে হুমকি প্রদান ও দাঁড়ি কেটে ফেলার কথা বলে কটুক্তি করেন। এরপর গত ৩ জুন শহিদুল্লাহ কায়সারের আদালতে ফটিকছড়ি উপজেলা তরীকত ফেডারেশন এর সভাপতি আলহাজ্ব মুহাম্মদ বেলাল উদ্দিন শাহ্ বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেন। বিকাল তিনটায় শুনানি শেষে আদালত গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। আজ বুধবার (১০ অক্টোবর) মামলার পরবর্তী তারিখে আসামি পলাতক থাকায় ঘরের মালামাল বাজেয়াপ্ত করণের আদেশ দেন আদালত। । উক্ত মামলার বাদীর আইনজীবী এ্যাডভোকেট তরুণ কিশোর দেব বলেন, গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীর বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলায় আদালত আসামির বাড়ির মালামাল বাজেয়াপ্ত করণের নির্দেশ দেন। উক্ত মামলার বাদী আলহাজ্ব মুহাম্মদ বেলাল উদ্দিন শাহ বলেন, ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তরীকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারীকে নিয়ে হুমকি প্রদান ও দাঁড়ি নিয়ে কটূক্তি করেছে গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরী। যার কারনে আমি এবং আামার সংগঠন এর সকল নেতাকর্মীরা খুবই মর্মাহত ও ব্যাথিত হয়েছি। তাই আমি মামলা দায়ের করেছি। আসামি পলাতক থাকায় এই আদেশ দিয়েছেন আদালত। প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটূক্তি করার অভিযোগে গিয়াস উদ্দিন কাদেরের বিরুদ্ধে মোট ৫টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ফটিকছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান এম তৌহিদুল আলম বাবু, ফটিকছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দিন মুহুরি, চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি ও ফটিকছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জামাল উদ্দিন বাদী হয়ে গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীর বিপক্ষে পৃথক মামলাগুলো দায়ের করেন। তার মধ্যে দুটি মামলায় জামিনে রয়েছেন গিয়াস কাদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*