ভেড়ামারায় যত্রতত্র বিক্রি হচ্ছে গ্যাস সিলিন্ডার ॥ নিরাপত্তার ঝুঁকিতে জনজীবন !

ভেড়ামারায় যত্রতত্র বিক্রি হচ্ছে গ্যাস সিলিন্ডার ॥ নিরাপত্তার ঝুঁকিতে জনজীবন !

এস.এম.আবু ওবাইদা-আল-মাহাদী, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, কুষ্টিয়া ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় নিয়ম-নীতি ও প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা মূলক ব্যবস্থা ছাড়াই উপজেলার বিভিন্ন বাজারের প্রায় দোকানে অবাধে বিক্রি হচ্ছে তরলকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাস বা এলপিজি সিলিন্ডার গ্যাস। আইন-কানুনকে বৃদ্ধাংগুলী দেখিয়ে শুধুমাত্র ট্রেড-লাইসেন্স নিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ এ জ্বালানীর ব্যাবসা চলছে অহরহ। ভেড়ামারা উপজেলার বিভিন্ন বাজার, পাড়া, মহল্লার মুদি দোকান, প্লাস্টিক সামগ্রি’র দোকান, ফার্ণিচারের দোকান, ফোন-ফ্যাক্স’র দোকান এমনকি জীবন রক্ষাকারী ওষুধের দোকানেও পাওয়া যাচ্ছে গ্যাস সিলিন্ডার। এসব দোকানে নেই কোন আগুন নির্বাপক যন্ত্র। বড় কোন দুর্ঘটনা ঘটলে জানা নেই প্রতিকারের ব্যাবস্থা। জনবহুল কিংবা আবাসিক এলাকায় ঝুঁকিপূর্ণ এ ব্যবসার কারণে দূর্ঘটনার ঝুঁকি বাড়ছে প্রতিনিয়ত। জানা গেছে, জ্বালানি অধিদপ্তরের আইন অনুযায়ী যে সব প্রতিষ্ঠান গ্যাস বিক্রি করবে তাদের গ্যাস বিক্রির স্থানকে সম্পূর্ণ সূরক্ষা রেখে ব্যাবসায়ীক কার্যক্রম চালাতে হয়। আইন অনুযায়ী গ্যাস বিক্রির স্থানে কমপক্ষে মেঝে পাকা সহ আধাপাকা ঘর, ফায়ার সার্ভিসের অগ্নিনির্বাপক লাইসেন্স সহ অগ্নিনির্বাপক সিলিন্ডার মজবুত ও ঝূকিমূক্ত সংরক্ষনাগার থাকতে হবে। এছাড়াও থাকতে হবে জ্বালানী অধিদপ্তরের অনুমোদন। অনুসন্ধানে দেখা গেছে এর কোনটিই নেই হাতে গোনা ২/১ জন ছাড়া এই উপজেলার গ্যাস ব্যবসায়ীদের। এসব গ্যাস ব্যবসায়ীরা সরকারকে রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে অবৈধ ভাবে দীর্ঘদিন তাদের ব্যবসা চালিয়ে আসছে। একটু লাভের আশায় দোকানের বাইরে ফুটপাতে গনগনে রোদে ফেলে রাখা হয়েছে এসব সিলিন্ডার। অধিক লাভের আশায় মান ও মেয়াদহীন অনেক কোম্পানির সিলিন্ডার রাখায় এসব দোকানীরা নিজের অজান্তেই বোমার চেয়ে ভয়ানক বিপদের পসরা সাজিয়ে রেখেছেন। বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক মোঃ সাইদুল ইসলাম (টিটু) জানান, রাস্তার পাশে কিংবা রোদে গ্যাস সিলিন্ডার রাখা ঝুঁকিপূর্ণ। এতে চাপ ও তাপ জনিত কারনে দুর্ঘটনার ঝুঁকি রয়েছে। ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল মারুফ জানান, নিয়মনীতি ও প্রয়োজনীয় নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা ছাড়া যারা গ্যাস সিলিন্ডার বিক্রয় করছেন তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*