বাংলাদেশে’র টাকা কেন দ্রুত নষ্ট হয়?

বাংলাদেশে’র টাকা কেন দ্রুত নষ্ট হয়?

স্টাফ রিপোর্টারঃ টাকা আমাদের জীবনের এক অনবদ্য সঙ্গী! আজকাল রুপহীন নারীর মতই বাংলাদেশে টাকাহীন বেকারদের কোন দাম নেই! আমরা প্রায়ই বিদেশী মুভি গুলুতে দেখে থাকি যে, ওদের দেশের টাকা ব্যাংক, মানিব্যাগ অথবা এটিএম বোথ ছাড়া বিনা প্রয়োজনে টাকা হাতের থাবায়/পকেটে রাখেন না। অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় যে অনলাইনে ও মার্কেটিং করেন। তাছাড়া আমাদের পার্শ্ববর্তী রাষ্ট্র ভারতেও কিন্তু টাকার সম্মান অনেক। কেননা একটু নরম হলেই এই নোট বাতিল বলে গণ্য করা হয়। এর পেছনেও কারন আছে, আর সেটা হল তাদের অর্থ মন্ত্রনালয় অথবা রাষ্ট্রের সচেতনতা। কাজেই টাকা যার নিকট থাকুন না কেন? বাতিলের ভয়ে হলেও যত্নে রাখা হয়। এমনকি পানিব্যবহৃত বানিজ্যে হাত মাস্ক ব্যবহার করা হয়। কাজেই এই টাকাগুলো যতদিন মেয়াদ ঠিক ততদিনই টিকে এবং মেয়াদ শেষে দেশের মোট অর্থের আয়-ব্যয় বুঝা সহজ হয়। কিন্তু আমাদের দেশে যদিও এত জমজমাট কোন বানিজ্য নেই, তবুও মুলত দুই কারনেই বাংলাদেশের টাকা দ্রুত নষ্ট হয়। আমরা যখন মাছ কিনতে বাজারে যাই তখন প্রায়ই দেখি মাছের উপর পানি ছিটানো ভেজা হাতেই বিক্রেতা টাকাটা তার পকেটে গুজে রাখেন, পান বাজারে গেলেও একি অবস্থা। আমার ধারনা, মুলত বাজেটে ঘাটতি যাওয়া টাকার প্রায় ২৫ শতাংশই এই দুই কারনে হয়,আর বাকি ৭৫ শতাংশ বিভিন্ন ব্যাংকের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংকে জমা হয়। এতে করে দেখা যায় টাকা অতিরিক্ত অচল হওয়ার ফলে ব্যাংকে না গিয়ে বিভিন্ন ব্যবসা- প্রতিষ্ঠান অথবা ব্যক্তিগত মালিকানায় অপব্যবহৃত হয়, যার হিসাব বিগত বাজেট হতে হারিয়ে যায়। আমরা সবাই জানি মানি ইস দ্যা সেকেন্ড গড। তবুও টাকাকে অবহেলা করি। এই টাকা আপনার -আমার,জাতির ও প্রজন্মের, ভবিষ্যৎ এর সম্পদ। একে রক্ষা করা আমাদের সকলের নৈতিক কর্তব্য। তাই আসুন সবাই মিলে জনসচেতনতা গড়তে মাছ বাজার ও পান বাজারে ওয়াটার রিমুভাল মাস্ক ব্যবহার করি! সয়ংসম্পুর্ণ বাংলাদেশ গড়ি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*