নরসিংদীতে শেখ হাসিনা সেতু’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

নরসিংদীতে শেখ হাসিনা সেতু’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

কে.এইচ.নজরুল ইসলাম,নরসিংদীঃ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে গণভবন থেকে সরাসরি নরসিংদীর দুটি সেতু উদ্বোধন করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা।বৃহস্পতিবার (১সেপ্টেম্বর) সকাল ১১ টায় একযোগে নরসিংদী সদর উপজেলাধীন নরসিংদী-করিমপুর জিসি সড়কে মেঘনা নদীর ওপর চরাঞ্চলবাসীর বহুল প্রত্যাশিত ৬৩০ মিটার দীর্ঘ ‘শেখ হাসিনা সেতু’ সহ নরসিংদী জেলার ৬টি উন্নয়ন প্রকল্প এবং দেশের ৫৬টি জেলায় ২০টি মন্ত্রণালয়ের অধীন ৩২০টি প্রকল্পের একযোগে উদ্বোধন ঘোষণা করেন।এ সময় নরসিংদী জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসন আয়োজিত ভিডিও কনফারেন্সে উপস্থিত ছিলেন,নরসিংদী ১ আসনের সংসদ সদস্য, পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী লে.কর্নেল (অব:) মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম (বীর প্রতীক),নরসিংদী ৪-(মনোহরদী-বেলাব)সংসদ সদস্য এড. নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন,নরসিংদী-২ পলাশ সংসদ সদস্য কামরুল আশরাফ খান পোটন,নরসিংদী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আব্দুল মতিন ভূইয়া,নরসিংদীর জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন,নরসিংদীর পুলিশ সুপার সাইফুল্লাহ আল মামুন বিপিএম-পিপিএম, বিভিন্ন উপজেলার চেয়ারম্যানবৃন্দ,জেলার বিভিন্ন পৌরসভার মেয়রবৃন্দ,জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ,বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের অধীন জেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ, সাংবাদিকসহ সর্বস্তরের সাধারণ মানুষ।সম্মেলন কক্ষের বাহিরে জেলা প্রশাসকের আঙ্গিনায় বড় পর্দায় টেলিকনফারেন্স সাধারণ মানুষের জন্য উন্মুক্ত করা হয়।নরসিংদী সদর উপজেলার নরসিংদী-করিমপুর মেঘনা নদীর ওপর ৬৩০ মিটার দীর্ঘ “শেখ হাসিনা সেতু” ছাড়াও নরসিংদী জেলা ৬টি উন্নয়ন প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে- গাজীপুর-আজমতপুর-ইটাখোলা সড়কে শীতলক্ষা নদীর উপর মোক্তারপুর-চরসিন্দুর সেতু, বেলাব উপজেলায় স্থাপিত ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন, নরসিংদী সদর উপজেলায় স্থাপিত ফ্যাশন ডিজাইন ট্রেনিং ইনস্টিটিউট, নরসিংদী সদরে প্রতিষ্ঠিত ইউএমসি জুট মিলস্ লিঃএর আধুনিকায়ন (বিএমআরই) প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন এবং জেলার প্রতিটি ইউনিয়নে উচ্চগতির ইন্টারনেট কানেক্টিভিটির ইনফো-সরকার এর ৩য় পর্যায় উদ্বোধন।উদ্বোধনী বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে এগিয়ে যাবে।আমরা উন্নয়নের মহাযাত্রায় চলছি।গ্রামের সাধারণ মানুষকেও আজকে আমরা উন্নয়নের মহাযাত্রায় সামিল করতে পেরেছি।বহু বাধাবিঘ্ন অতিক্রম করে আজকে আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশে পৌঁছতে সক্ষম হয়েছি।পাক হানাদার বাহিনীর দোষর বিএনপি- জামাত-শিবির চক্র এদেশকে নৈরাজ্যে পৌছে দেয়ার অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়ে পড়েছিল।তাদের হাতে তিন হাজার আটশত হত্যাকান্ড ছাড়াও তারা ৫শত নিরীহ মানুষকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করেছে।আমরা উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখে বাংলাদেশ ডিজিটাল বাংলাদেশে রূপান্তরিত করতে সক্ষম হয়েছি।পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম (বীর প্রতীক) বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার মধ্যে হিংসা-বিদ্ধেষ ছিল।সে উন্নয়নের তালিকা থেকে গোপালগঞ্জের নাম বাদ দিয়েছিলেন।অপরদিকে জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মধ্যে কোন হিংসা বিদ্বেষ নাই বলেই তিনি উন্নয়নের তালিকায় বগুড়া কে রেখেছেন এবং সেখানে উন্নয়ন করেছেন।পরে প্রতিমন্ত্রী নজরুল ইসলাম (বীর প্রতীক),এড. নুরুল মজিদ মাহমুদ এমপি, কামরুল আশরাফ খান পোটন ও জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন সমন্বয়ে একটি বর্ণাঢ্য আনন্দ র্যালি জেলা প্রশাসক কার্যালয় চত্বর থেকে শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।উল্লেখ্য, মেঘানা নদীর উপর সেতু নির্মাণের ফলে চরাঞ্চলের ৪টি ইউনিয়ন, করিমপুর, নজরপুর, আলোকবালী ও চরদিঘলদী এলকার প্রায় ২৫ হাজার মানুষ জেলা শহরের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করতে পারে।এতে এলাকা আর্ত সামাজিক অবস্থার উন্নতি সাধিত হবে।সেখানে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক শিল্প কারখানা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, স্বাস্থ্যকেন্দ্র, গ্রোথ সেন্টার ও হাটবাজার এ যাতায়াত দ্রুততর ও সহজ হবে।শুধু তাই নয়, সারাদেশের সাথে তাদের যোগাযোগও সহজ হয়ে গেল এই সেতু নির্মাণের ফলে।এতে চরাঞ্চলবাসী যেমন খুশী তেমন শহরে অবস্থানকারী লোকজনও তাদের সাথে সহজে যোগাযোগ রক্ষা করতে পারবে বলে খুশী।সর্বোপরী দেশের সার্বিক উন্নয়নে নরসিংদীবাসীও পিছিয়ে নেই এই ভেবে জেলাবাসী নরসিংদীর আরো উন্নয়ন প্রত্যাশী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*