ঠাকুরগাঁয়ে শীতের আগমনে ধুম পড়েছে অস্থায়ী পিঠার দোকানে

ঠাকুরগাঁয়ে শীতের আগমনে ধুম পড়েছে অস্থায়ী পিঠার দোকানে

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ ঠাকুরগাঁয়ে শীতের আগমনে পিঠার চাহিদা বেড়েছে পিঠার দোকানে। কদর বেড়েছে গরম গরম ও ভাপা পিঠার। এখন আগের মতো বাসা-বাড়িতে এসর পিঠার আয়োজন না থাকলেও তা বিক্রি হচ্ছে বাণিজ্যিক ভাবে ঠাকুরগাঁয়ের বিভিন্ন স্থানে। পিঠার দোকানে ভীড় করছেন ধনী-গরীব সব শ্রেণী পেশার মানুষ। পিঠা প্রেমীরা কোনো ঝামেলা ছাড়াই নাগালে পাচ্ছেন এসব দেশি পিঠা। তাই এসব পিঠার দোকানে রীতিমতো ভীড় জমে উঠেছে। জানা গেছে, নেকমরদ, শিবগঞ্জ, লাহিড়ী, রুহিয়া, খোচাবাড়ী, মধুপুর কালিতলা, পাটিডাঙ্গী, রামনাথ বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে অস্থায়ী দোকানে পিঠা বিক্রি হচ্ছে। এসব দোকানে চিতই পিঠা ও ভাপা পিঠা বিক্রির ধুম পড়েছে। তবে অন্যান্য পিঠা তৈরিতে কিছু ঝামেল থাকায় এবং চাহিদা কিছুটা কম থাকায় এই দুই প্রকারের পিঠা বেশি বিক্রি হচ্ছে। রুহিয়ার পিঠার দোকানি ইসলাম ও নুরজাহান জানান, তার দোকানে বিক্রিবেশ ভাল হচ্ছে। প্রতিদিন বিকাল থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত ১০০০ থেকে ১২০০ টাকা পিঠা বিক্রি হয়। যা পিঠা তৈরির উপকরণসহ অন্যান্য খরচ বাদ দিয়ে দৈনিক ৪০০ থেকে ৪৫০ টাকা লাভ হচ্ছে। পিঠা প্রেমিক একবৃদ্ধা জানান, আগের মত বাসায় আর পিঠা তৈরি উৎসব হয় না। বাজারে পিঠার দোকান দেখে লোভ সামলাতে পারলাম না। তবে সেই আগের স্বাদ এখন আর পিঠা-পুলিতে নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*