আসন্ন সংসদ নির্বাচন অবাধ নিরপেক্ষ করার দাবিতে রাঙামাটি জেলা প্রশাসকের সাথে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির নেতৃবৃন্দের স্বাক্ষাত

আসন্ন সংসদ নির্বাচন অবাধ নিরপেক্ষ করার দাবিতে রাঙামাটি জেলা প্রশাসকের সাথে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির নেতৃবৃন্দের স্বাক্ষাত
রাঙামাটি জেলা প্রতিনিধি :: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের বিষয়ে কথা বলার জন্য রাঙামাটি জেলা প্রশাসকের সাথে বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি রাঙামাটি জেলা কমিটির সাধারন সম্পাদক নির্মল বড়–য়া মিলনের নেতৃত্বে ৬ সদস্যর প্রতিনিধি দল রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদের সাথে সৌজন্য স্বাক্ষাত করেছেন।
আজ ৭ নভেম্বর বুধবার সকালে রাঙামাটি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে এ স্বাক্ষাত করেন।
এসময় বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি রাঙামাটি জেলা কমিটির সাধারন সম্পাদক নির্মল বড়–য়া মিলন আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ, অংশগ্রহণমূলক গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য সরকারের পদত্যাগ করা, জাতীয় নির্বাচনের পূর্বে সংসদ ভেঙে দেওয়া, জনগণের আস্থাহীন বর্তমান নির্বাচন কমিশন পূনর্গঠন, ও সংখ্যানুপাতিক নির্বাচন ব্যবস্থা চালুসহ কালোটাকা পেশি শক্তি ও সাম্প্রদায়িক প্রচারণা রোধসহ গোটা নির্বাচন ব্যবস্থার আমূল সংস্কার ইভিএম ব্যবহার বন্ধ করা, না ভোটের বিধান চালু, আরপিও’র দল নিবন্ধনের অগনতান্ত্রিক শর্ত বাতিল, স্বতন্ত্র সদস্যদের নির্বাচনের জন্য ১% ভোটারের সমর্থন সূচক স্বাক্ষরের বিধান বাতিলের বিষয়ে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। জেলা প্রশাসক বলেন বিষয়টি সরকারের জাতীয় পর্যায় থেকে সুরাহা আসতে হবে। তাছাড়া এখন সরকারের উচ্চ পর্যায়ের সাথে জোটবদ্ধ রাজনৈতিক দলগুলো প্রতিনিয়ত সংলাপ করছেন, রাজনৈতিক পরিস্থিতিও প্রতিনিয়িত পরিবর্তন হচ্ছে।
পার্টির নেতৃবৃন্দ অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য রাঙমাটি জেলায় সকল রাজনৈতিক দলগুলোর রাজনৈতিক কর্মসূচি পালনে সকল দল গুলির জন্য সমান সুযোগ (লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড) সৃষ্টির জন্য জেলা প্রশাসকের নিরপেক্ষ ভুমিকার দাবি জানান।
জেলা প্রশাসক রাজনৈতিক দলগুলি নিয়মতান্ত্রিক কর্মসূচি পালনে সকল দল সমান সুযোগ পাবেন বলে আশ্বস্থ করেন।
গত ১৯ আগষ্ট তারিখে বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি রাঙামাটি জেলা কমিটির পক্ষ থেকে জেলার ৩৫দিন ব্যাপী ৩১টি স্থানে পথসভা করার অনুমতি চেয়ে জেলা প্রশাসক বরাবর যে আবেদন পত্র জমা দেওয়া হয়েছিল আবেদনের প্রেক্ষিতে রাঙামাটি জেলা প্রশাসন থেকে অনুমতি প্রদান করা হয়নি এবং এ বিষয়ে পার্টিকে পত্র দ্বারা অবহিত ও করা হয়নি বিষয়টি দুঃখজনক বলে সাধারন সম্পাদক জেলা প্রশাসককে জানান, এবিষয়ে জেলা প্রশাসক বলেন রাজনৈতিক দলগুলির কর্মসূচি পালনে জেলা পুলিশ প্রশাসনসহ গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনের উপর ভিত্তি করে জেলা প্রশাসন রাজনৈতিক কর্মসূচির অনুমতি দিয়ে থাকে। এখন থেকে রাজনৈতিক দলগুলো কর্মসূচি পালনে আবেদনের ভিত্তিতে অনুমতি প্রদান করা হবে বলে জানান জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ।
এসময় বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি রাঙামাটি জেলা কমিটির সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য ও পার্টির রাঙামাটি-২৯৯ আসনের সম্ভাব্য সংসদ সদস্য প্রার্থী জুঁই চাকমা, জেলা সদস্য তপন চাকমা, সদস্য মায়াসোনা চাকমা, বিপ্লবী নারী সংহতি জেলা সদস্য আকলিমা আক্তার ও বিপ্লবী ছাত্র সংহতি রাঙামাটি জেলা কমিটির সমন্বয়ক জগৎ মিত্র চাকমা প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*