বাগআঁচড়ার হক ফার্মেসীতে মেয়াদ উত্তীর্ন ইঞ্জেকশন  বিক্রির অভিযোগ

বাগআঁচড়ার হক ফার্মেসীতে মেয়াদ উত্তীর্ন ইঞ্জেকশন  বিক্রির অভিযোগ
মোঃ আয়ুব হোসেন পক্ষী,শার্শা উপজেলা প্রতিনিধিঃ যশোরের শার্শার বাগআঁচড়ায় মেয়াদ উত্তীর্ন ঔষধ বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বাগআঁচড়া বাজারের হক ফার্মেসীতে। জানা গেছে শার্শা উপজেলার ইছাপুর গ্রামের গ্রাম্য ডাক্তার আনারুল ইসলাম তার এলাকার এক প্রসূতি মায়ের প্রসাব বেদনা উঠলে বাগআঁচড়া সাতমাইল জোহরা ক্লিনিকে ভর্তি করে। কর্মরত চিকিৎসক সিজার করার পূর্বে রুগীর সজ্বনদেরকে বাহির থেকে ঔষধ সরঞ্জাম আনতে বললে গ্রাম্য ডাক্তার আনারুল ইসলাম মঙ্গলবার বিকালে শার্শা থানা কেমিস্ট এণ্ড ড্রাগিস্ট সমিতির যুগ্নসাধারণ সম্পাদক এক সময়কার দূর্ধর্ষ যুবদল ক্যাডার হীরার মালিকানাধীন হক ফার্মেসীতে যায়।
হক ফার্মেসীর স্বত্তাধীকারী হীরা তাকে অন্যন্য ঔষধের সাথে মেয়াদ উত্তীর্ন সেফট্রোন ইঞ্জেকশন বিক্রি করে। যার প্যাকেটের গায়ে উৎপাদন আগষ্ট / ১৬ ও মেয়াদ উত্তীর্ন জুন/১৮ লেখা আছে। সচেতন মহল বলছে মেয়াদ উত্তীর্ন সেফট্রোন ইঞ্জেকশন রুগীর শরীরে পুশ করলে রুগীর মৃত্যুই ঘটতে পারতো । অথচ কেমিস্ট এণ্ড ড্রাগিস্ট সমিতির নেতা হীরা প্রভাবশালী হওয়ায় দম্ভোক্তির সাথে চালিয়ে যাচ্ছে তার ব্যবসা। সূত্র জানায় বিগত জামাত – বিএনপি সময় হীরা নামের এই দূর্ধর্ষ যুবদল ক্যাডার তার নিজ গ্রাম সেতার বাজারে বঙ্গবন্ধ ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাংচুর করে সেই ছবিটিতেও আগুন জালিয়ে দিয়ে ছিলো। একের পর এক অপকর্ম ও মেয়াদ উত্তীর্ন ঔষধ বিক্রি করেও দম্ভোক্তির সাথে বলছে লেখালিখি হলেও আমার কিছু হবে না। এ ব্যাপারে হক ফার্মেসীর স্বত্তাধীকারী হীরার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি আনারুলের কাছে  ঔষধ বিক্রি  করেছি ঠিক আছে। তবে সেফট্রোন ইনঞ্জেকশন বিক্রি করেননি। মেয়াদ উত্তীর্ন ঔষধ যাতে বাগআঁচড়া বাজারের কোন ফার্মেসীতে আর না বিক্রি হয় তার ব্যবস্থা করতে এলাকাবাসী উর্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*