নাঙ্গলকোটে গৃহবধুকে পিটিয়ে হত্যা

নাঙ্গলকোটে গৃহবধুকে পিটিয়ে হত্যা
মো. ওমর ফারুক, নাঙ্গলকোট: কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে যৌতুকের দাবিতে স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন গৃহবধু খালেদা আক্তারকে (২৪) পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত রোববার উপজেলার জোড্ডা পূর্ব ইউনিয়নের হাসানপুর গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। খালেদাকে হত্যার পর তার লাশ ঘরে রেখে পালিয়ে যায় স্বামীসহ শ্বশুর বাড়ির লোকজন । গতকাল সোমবার সকালে খালেদার ভাই শাহাব উদ্দিন থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে।
পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, উপজেলার জোড্ডা পূর্ব ইউনিয়নের শংকরপুর গ্রামের শাহ আলমের মেয়ে খালেদা আক্তারের সাথে সাত বছর পূর্বে একই ইউনিয়নের হাসানপুর গ্রামের বজলুর রহমানের ছেলে শাহআলম ওরফে শিপনের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় খালেদার পরিবার তার স্বামীকে যৌতুক হিসেবে নগদ ৭৫ হাজার টাকাসহ প্রায় ২ লাখ টাকার আসবাবপত্র প্রদান করেন। পরবর্তীতে আরো টাকা চাইলে খালেদার পরিবার যৌতুক হিসেবে শাহ আলমকে অন্তত ৫ লাখ টাকা প্রদান করে। তারপরও যৌতুকের জন্য খালেদাকে তার স্বামী ট্রাক্টর চালক শাহ আলম প্রতিনিয়ত নির্যাতন করতেন। খালেদার ছেলে শিহাব উদ্দিন (৫) ও মেয়ে সামিয়া আক্তার (৮ মাস) রয়েছে।
খালেদার পিতা শাহ আলম বলেন, খালেদার স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন যৌতুকের জন্য আমার মেয়েকে প্রতিনিয়ত নির্যাতন করতেন। রোববার বিকেলে স্বামী শাহ আলম, শ্বাশুড়ি আবিদা বেগম ও জ্যাঁ ছালমা আক্তার খালেদাকে পিটিয়ে হত্যা করে লাশ ঘরে রেখে পালিয়ে যায়। খালেদার পাঁচ বছরের ছেলে শিহাব উদ্দিন বলেন, তার মাকে তার বাবা শাহ আলম লাঠি দিয়ে পিঠালে আমার মা মারা যায়। অভিযুক্ত শাহ আলমের বাড়িতে সরেজমিনে গিয়ে বাড়িতে কাউকে পাওয়া যায়নি।
নাঙ্গলকোট থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আশ্রাফুল ইসলাম গতকাল সোমবার বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়া গেলে হত্যার কারণ জেনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*