নাঙ্গলকোটে বই বিতরণ

নাঙ্গলকোটে বই বিতরণ
মো. ওমর ফারুক, নাঙ্গলকোট: “নিরক্ষর মুক্ত দেশ গড়া ও শতভাগ শিক্ষার্থী বিদ্যালয়মুখী করার” এ স্লোগান নিয়ে আয়োজিত নাঙ্গলকোটে গতকাল মঙ্গলবার প্রাক-প্রাথমিক থেকে নবম-দশম শ্রেণীর ও স্কুল-মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে পাঠ্য বই বিতরণ করা হয়েছে। নতুন বই হাতে পেয়ে আনন্দে উলসিত শিক্ষার্থীরা। ইংরেজি নবর্বষের দিন থেকে জীবন গঠনের যাত্রা শুরু হয়ে গেছে শিক্ষার্থীদের। পুরো উপজেলায় এখন বাতাসে গুরছে নতুন বইয়ের গ্রাণ।
নাঙ্গলকোট এ আর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ ষ্ঠশ্রেণীর ছাত্র শাকিবুল বলেন, এই সরকারের বিনামূল্যে বই পেয়ে খুবই আনন্দিত। এই সরকার আমাকে বিনামূল্যে বই দিয়ে পড়া-লেখা করার জন্য সুজুক দিচ্ছে। যাতে আমার স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করে একজন সু-শিক্ষিত মানুষ হয়ে এই এলাকা তথা এই দেশের সেবা করতে পারি।
ময়ূরা উচ্চ বিদ্যালয় সহকারি প্রধান শিক্ষক তাজুল ইসলাম জানান, এই সরকার বিনামূল্যে বই দিয়ে গবির মেধাবী ছাত্র/ছাত্রীদের অনেক উপকার করছে। তাই তারা আরো বেশি বেশি পড়া-লেখা করে বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনার স্বপ্নকে বাস্থ্যবায়ন করে বিশ্বের মাঝে বঙ্গবন্ধুর এই সোনার বাংলার মুখ উজ্জল করবে।
অভিভাবক পৌর মেয়র মনিরুজ্জামান খাঁন বলেন, বঙ্গবন্ধুর সু-যোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শিশুদেরকে বিনামূল্যে বই দিয়ে শিক্ষার আলো ঘরে ঘরে পৌঁছিয়ে দিচ্ছেন। যার ফলে আগামী কয়েক বছরে কোন অশিক্ষত লোক খোজে পাওয়া যাবে না। এই বই উৎসবের মধ্যেই ছাত্র/ছাত্রীরা যেন পৃথীবির সব সুখ খুজে পায়।
এ বিষয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন জানান, এ বছর উপজেলার প্রতিটি স্কুল-মাদ্রাসায় ও ভোকেশনালের ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে ৭ লাখ ১৮ হাজার ৭ শত ৫০ নতুন বই বিতরন চলছে। এই সরকারের আমলে নতুন বই পেয়ে ছাত্র-ছাত্রী অনেক খুশি।
এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা অফিসার আল আমিন বলেন, উপজেলার ১৫০ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে ২ লাখ ৭৫ হাজার ৪ শত ১০ নতুন বই বিতরন করা হয়। বই উৎসবের দিনে নতুন বই হাতে পেয়ে কমলমতি শিক্ষার্থীরা আনন্দে মাতহারা।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার দাউদ হোসেন চৌধূরী বলেন, প্রায় সব কয়টি বিদ্যালয়ে বই উৎসব চলছে। নতুন বই পেয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে আনন্দে মাত হারা। আগমী দিনে কোন শিশু শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত হবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*