সাতক্ষীরার আশাশুনিতে তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের পরে পুকুরের পানিতে ফেলে হত্যা,ধর্ষক গ্রেফতার

সাতক্ষীরার আশাশুনিতে তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের পরে পুকুরের পানিতে ফেলে হত্যা,ধর্ষক গ্রেফতার

হেলাল উদ্দীন , সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধিঃ  ধর্ষণের পরে তৃতীয় শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রীকে পানিতে ফেলে হত্যা করা হয়েছে। রবিবার সন্ধ্যায় সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার গাবতলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতের নাম জয়দেব সরকার। সে আশাশুনি উপজেলার গাবতলা গ্রামের নির্মল সরকারের ছেলে ও বুধহাটা বিবিএম কলেজিয়ট স্কুলের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র। নিহত স্কুল ছাত্রী সুষ্মিতা দাস আশাশুনি উপজেলার গাবতলা গ্রামের প্রশান্ত দাসের মেয়ে ও গাবতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী। গাবতলা গ্রামের প্রশান্ত দাস জানান, তার মেয়ে সুস্মিতা প্রতিবেশী নির্মল সরকারের কলেজ পড়ূয়া মেয়ে অম্বিকা সরকারের কাছ প্রতিদিন বিকালে প্রাইভেট পড়তে যায়। প্রাইভেট পড়ানোর জন্য অম্বিকাকে মাসিক দেড়’শ টাকা দিতে হয়। রবিবার বিকালে অম্বিকা বাড়িতে না থাকায় তার ভাই জয়দেব সরকার সুস্মিতাকে প্রাইভট পড়িয়ে বাড়িতে বাগ রেখে আবারো ডেকে নিয়ে যায়। সন্ধ্যায় তাকে গাবতলার সত্য রঞ্জন দাসের দোকান থেকে খাবার কিনে বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়। বাড়িতে কেউ না থাকার সূযোগে সুস্মিতাকে ধর্ষণ করে জয়দেব। একপর্যায়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেললে সুস্মিতা মারা গেছে ভেবে তাকে বাড়ির পুকুর ফেলে দেয়। পরে গ্রামবাসি সুস্মিতাকে খুঁজতে থাকার একপর্যায়ে পুকুর জাল ফেলার কথা বললে সকলের অজান্তে পুকুর থেকে লাশ তুলে সুস্মিতাকে নিজের বাথরুমে ফেলে রাখে। রাত ১১টার দিকে পুলিশ সুস্মিতার লাশ উদ্ধার করে। গ্রেফতার করে জয়দেব সরকারকে।গ্রেফতার কৃত জয়দব সরকার সাংবাদিকদের কাছে নিজের দোষ স্বীকার করেছে।আশাশুনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বিপ্লব কুমার নাথ জানান, সুস্মিতার লাশের ময়না তদন্তের জন্য সোমবার সকালে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালর মর্গে পাঠানো হয়েছে। গ্রেফতারকৃত জয়দব সরকার ধর্ষণ ও হত্যার কথা স্বীকার করায় তাকে আদালতের মাধ্যমে স্বীকারাক্তিমূলক জবানবন্দি করানো হবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*