সংরক্ষিত নারী আসনে ২য় টুঙ্গিপাড়ার মুক্তিযোদ্ধা সন্তান মশরফা জন্নাত

সংরক্ষিত নারী আসনে ২য় টুঙ্গিপাড়ার মুক্তিযোদ্ধা সন্তান মশরফা জন্নাত
ইঞ্জিনিয়ার হাফিজুর রহমান খাঁন, উপকূলীয় প্রতিনিধি : কক্সবাজারের পরীক্ষিত নারী নেত্রীরা একাদশ সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের ঢামাডোল শুরু হয়ে গেছে। ইতিমধ্যে এই প্রক্রিয়ায় মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ চলছে। এই প্রতিদ্বন্ধীতে অংশ নিতে যাচ্ছেন কক্সবাজার জেলা পরিষদের সম্মানিত সদস্য, মহেশ খালী উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের বিপ্লবী সভানেত্রী, মাতার বাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষিকা, মাতার বাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি এ. কে. এম. জাহাঙ্গীর বাদশার সহধর্মিনী ২য় টুঙ্গিপাড়া খ্যাত মাতারবাড়ীর কৃতি নেত্রী মশরফা জন্নাত। একজন রাজনীতিবিদের প্রধান লক্ষ্য থাকে জনপ্রতিনিধি হওয়া। সে ধারা থেকে ব্যতিক্রম মশরফা জন্নাতও। তিনি রাজনৈতিক জীবনে সব সময় মানুষের জন্য রাজনীতি করেছেন। মানুষের জন্য সার্বক্ষণিক কাজ করেছেন।বিশাল মাতারবাড়ী কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাড়িয়ে এই মানবসেবার প্রক্রিয়াকে আরো প্রসার করতে এবার তিনি সংরক্ষিত আসন থেকে নারী সাংসদ হতে চান বলে জানান মশরফা জন্নাত। মশরফা জন্নাত সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলে জন-মানুষের সামগ্রিক উন্নয়ন ও বিশাল মাতারবাড়ী কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প সকল ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ ও চাকরি নিশ্চিত করতে পারবে বলে আশা ব্যক্ত করেছেন সাধারণ মানুষ। তারা বলছেন, মশরফা জন্নাত রাজনৈতিক জীবনের বলিষ্ঠ ভূমিকার পাশাপাশি মানুষের জন্য কাজ করারও ব্যাপক অভিজ্ঞতা রয়েছে। সাংসদ নির্বাচিত হলে তিনি সেই অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নযাত্রায় অবদান রাখতে সক্ষম হবেন। মশরফা জন্নাত বলেন, ‘নারী হয়েও জন-মানুষের জন্য কাজ করা যায় তা প্রমাণ করতেই আমি রাজনীতিতে এসেছি। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শের অনুপ্রাণিত আমাকে আওয়ামী লীগের রাজনীতি ব্যাপক উৎসাহ জোগায়। মাননীয় প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্নযাত্রায় শামিল হয়ে নারীর অধিকারসহ সকল স্তরের জনগণের কল্যাণের জন্যই আমার পথচলা। সে লক্ষ্যকে আরো প্রসারিত করতে আমি সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়প্রত্যাশী। আশা করি এই বিশাল মাতার বাড়ী কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প শামিল দেওয়ার জন্য ২য় টুঙ্গিপাড়া খ্যাত মাতার বাড়ীর সন্তান হিসেবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাশিনা আমাকে মূল্যায়ন করবেন, ইনশা-আল্লাহ।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*