চকরিয়ায় স্কুলছাত্র আনাস ইব্রাহিম হত্যাকান্ডের ১৭দিন পর এজাহারভুক্ত আসামী গ্রেপ্তার

চকরিয়ায় স্কুলছাত্র আনাস ইব্রাহিম হত্যাকান্ডের  ১৭দিন পর এজাহারভুক্ত আসামী গ্রেপ্তার

মোঃ নাজমুল সাঈদ সোহেলচকরিয়া(কক্সবাজার)প্রতিনিধি :   কক্সবাজারের চকরিয়ায় স্কুলছাত্র আনাস ইব্রাহিম হত্যাকান্ডের ঘটনার ১৭দিন পর এজাহারভুক্ত আসামী সালাহউদ্দিন সাবিদকে (২০) গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ। মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে চট্টগ্রাম মহানগরীর বহদ্দারহাট এলাকাস্থ হক মার্কেট থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত আসামী সালাহউদ্দিন সাবিদ চকরিয়া পৌরসভার ৭নম্বর ওয়ার্ডের পালাকাটা হাসেম মাস্টার পাড়া এলাকার নাজিম উদ্দিনের ছেলে। সে চাঞ্চল্যকর আনাস ইব্রাহিম হত্যাকান্ডের এজাহারভুক্ত চার নাম্বার আসামী।     উল্লেখ্য, স্কুল ছাত্র আনাস ইব্রাহিম ঘটনার পর নিহতের বাবা মৌলানা নেছার আহমদ বাদী হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখ করে ১২ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ঘটনার দিন এজাহারভুক্ত ৬ নম্বর আসামী শামশুল আলমের ছেলে মো: রিয়াজ (১৮) ঘটনার পর পরই গ্রেপ্তার হয়। ঘটনার দীর্ঘ ১৭ দিন পর আরেক আসামীকে চট্টগ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করলো পুলিশ। এতে হত্যাকান্ডের আসল রহস্য উম্মোচন ও এজাহারভুক্ত অপর আসামীদের গ্রেপ্তারের বিষয়টি অনেকটা সহজ হবে বলে পুলিশ জানিয়েছে।স্থানীয় পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রাম মহানগরীর বহদ্দারহাট হক মার্কেট এলাকায় চকরিয়ায় আলোচিত স্কুল ছাত্র আনাস হত্যাকান্ডের এক আসামী অবস্থান নেয়ার সংবাদ পেয়ে মঙ্গলবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানা পুলিশের একটি টীম অভিযানে নামে। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: হাবিবুর রহমান নেতৃত্বে ও চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের ডিবির সহায়তায় চাঞ্চল্যকর আনাস ইব্রাহিম হত্যা মামলায় এজাহারভুক্ত চার নাম্বার আসামী সালাহউদ্দিন সাবিদকে অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে। অভিযানে অংশ নেন থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) এস এম আতিক উল্লাহ, উপপরিদর্শক এস আই জাকির হোসেনসহ সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স।চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: হাবিবুর রহমান বলেন, আনাস ইব্রাহিম হত্যা মামলায় পুলিশ ইতোমধ্যে দুই আসামীকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে। মামলায় অপারাপর আসামীরাও অচিরেই ধরা পড়বে। গ্রেপ্তার দুইজনকে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে ঘটনার আসল রহস্য উন্মোচন করা হবে বলে  জানান তিনি ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*