অবশেষে গ্রেফতার সিরিয়াল কিলার বাবু

অবশেষে গ্রেফতার সিরিয়াল কিলার বাবু

শেখ সুজন কুমার,নাটোর প্রতিনিধিঃ ৮টি হত্যা মামলার আসামী সিরিয়াল কিলার বাবু শেখ কে গ্রেপ্তারের দাবি করেছে পুলিশ। এ সময় আরো ৩ জন সহযোগীকে গ্রেফতার করেছে বলে জানায় পুলিশ। আজ রবিবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে নাটোর পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সামনে এক প্রেস ব্রিফিংএর মাধ্যমে সাংবাদিকদের এ তথ্য দেন রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি এ কে এম হাফিজ আক্তার বিপিএম বার।
প্রেস ব্রিফিং-এ জানানো হয় গত ৯ অক্টোবর নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার জয়ন্তীপুর এলাকার রেহেনা বেগম (৬০) ও লালপুর উপজেলায় চংধুপইল এলাকার আনসার সদস্য সাবিনা পারভীন সাহেরাকে হত্যা করা হয়। এ দুটি ঘটনায় হত্যা মামলা দায়ের করা হলে পুলিশ তদন্ত শুরু করে। এরই এক পর্যায়ে গত ১৫ অক্টোবর পুলিশ সিংড়া থেকে রুবেল আলীকে গ্রেফতার করে। তার দেওয়া তথ্যমতে একই দিন লালপুর উপজেলায় চংধুপইল থেকে ছুরি করা স্বর্নালংকার ক্রেতা নাটোর শহরের স্বর্ন ব্যবসায়ী লিটন খাঁকে গ্রেফতার করা হয়। এ দুইজনের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে গত ১৬ অক্টোবর নাটোর রেলওয়ে স্টেশন থেকে আসাদুলকে গ্রেফতার করা হয়। আসাদুল জানায় চুরি করার সময় তার সাথে রুবেল আলী ও বাবু শেখ ছিল। এর পরে ১৯ অক্টোবর সন্ধ্যায় একই স্থান থেকে বাবু শেখকে গ্রেফতার করা হয়।  জিজ্ঞাসাবাদে বাবু শেখ স্বীকার করে যে সে নাটোরের লালপুর, বাগাতিপাড়া, বাঁশিলা, নলডাঙ্গা, টাঙ্গাইল ও নওগাঁ জেলায় ৮ টি হত্যকান্ড সংঘটিত করেছে। তারা মৎস্য শিকারী (জেলে) র বেশে বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়ায় ও চুরির পরিকল্পনা করে। পরিকল্পনা মাফিক সহযোগিদের সাহায্যে সুবিধাজনক বাড়িতে প্রবেশ করে ধর্ষণ শেষে হত্যা ও চুরি করে। সিরিয়াল কিলার বাবু শেখ নওগাঁ জেলার রাণীনগর থানার মৃত জাহের আলীর ছেলে। অত্যধিক চুরি করায় তাকে এলাকাবাসী গ্রাম ছাড়া করেছিল। সে মছ ধরার চেয়ে হত্যাকে অনেক সহজ মনে করে। তবে সে নিন্ম মধ্যবিত্ত ও নিন্ম পরিবারের মহিলাদের হত্যা করে আসছিল।
প্রেস ব্রিফিংকালে নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আকরামুল হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বড়াইগ্রাম সার্কেল হারুন-অর রশিদ, ডিবির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈকত হাসান উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*