কোটচাঁদপুরে অপহৃত যুবক উদ্ধারের ঘটনায় মামলা দায়ের ও ১ অপহরণকারী আটক

কোটচাঁদপুরে অপহৃত যুবক উদ্ধারের ঘটনায় মামলা দায়ের ও ১ অপহরণকারী আটক

কোটচাঁদপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধিঃ ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে সুজন আহম্মেদ (২৩) নামের অপহৃত এক যুবককে উদ্ধার করেছে কোটচাঁদপৃুর থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ২টার সময় কোটচাঁদপুর মৎস্য হ্যাচারী এলাকা থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। এ বিষয়ে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এসময় শাহরিয়ার রহমান মামুন (৪৩) নামে এক অপহরণকারী কে আটক ও অপহরণে ব্যবহৃত একটি মাইক্রোবাস উদ্ধার করে।অপহৃত সুজন কোটচাঁদপুর শহরের দুধসারা গ্রামের বিশু মিয়ার ছেলে। সে আদম ব্যবসার সাথে জড়িত বলে জানায় এলাকাবাসী।

অপহৃত সুজনের সৎ পিতা হাবিবুল্লাহ জানান, সুজন দেশের বাহিরে থেকে গত কয়েকমাস আগে বাড়িতে আসে। এরপর এলাকার কিছু মানুষকে বিদেশ পাঠানোর কথা বলে টাকা নিয়ে হঠাৎ উধাও হয়ে যায়। পরে জানতে পারি সে কোটচাঁদপুর এলাকা থেকে অপহরণ হয়েছে।

তিনি আরও জানান,অপহরণকারীরা সুজনের প্রবাসী খালা মানসুরার কাছে ফোনে ২০ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন। পরে মানসুরা তার স্বামী জাফর কে ঘটনাটি জানায়। এরপর আমরা কোটচাঁদপুর থানা পুলিশের দারস্থ হই। অপহরণকারীদের কাছে ফোন করলে তারা আমাদের কে বৃহস্পতিবার রাতে কোটচাঁদপুর বলুহর ষ্টান্ডে যেতে বলে। পরে পুলিশের সহযোগিতায় আমরা রাত ২টার দিকে সেখানে গেলে তারা আমাদেরকে কোটচাঁদপুর মৎস্য হ্যাচারীতে আসতে বলে । ওই সময় আমাদের নিকট একটি ব্যাগ ছিল কিন্তু তাতে কোন টাকা ছিল না। তখন আমরা পুলিশকে অবগত করি যে অপহরণকারীরা আমাদের কোটচাঁদপুর মৎস্য হ্যাচারীর গেটে যেতে বলেছে। আমাদের কথা মতো পুলিশের একটি টিম সেখানে অভিযান চালিয়ে একটি মাইক্রোবাস থেকে সুজনকে উদ্ধার করে।

কোটচাঁদপুর থানার অফিসার ইনচার্র্জ (ওসি) বিপ্লব কুমার সাহা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গত
মঙ্গলবার কোটচাঁদপুর বাসষ্টান্ড এলাকা থেকে সুজন নামে এক যুবককে অপহরণ করা হয়। এসময় অপহরণকারীরা ২০লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে বলেও জানায় ওসি । এমন অভিযোগের ভিত্তিতে অপহরণকারীদের ধরতে বৃহস্পতিবার রাতে মুক্তিপণের নগদ ৫ লক্ষ টাকা দেওয়ার সময় কোটচাঁদপুর মৎস্য হ্যাচারী এলাকায় অভিযান চালায় আমি এবং এস.আই ব্রজ বল্লভ সাধু, এস.আই সৈয়দ আলী, এ.এস.আই জামাল উদ্দীন, এ.এস.আই পিংক, এ.এস. আই মিঠুন বিশ্বাসসহ পুলিশের একটি টিম। সেখান থেকে অপহৃত সুজনকে উদ্ধার করা হয়। এসময় ঘটনাস্থল থেকে ১ অপহরণকারীকে আটক করলেও বাকিরা চট্ট মেট্রো-চ ১১-৩৫৬৭ নাম্বারের একটি মাইক্রোবাস ফেলে পালিয়ে যায়।
আটককৃত অপহরণকারী মামুন কোটচাঁদপুর কলেজষ্টান্ড পাড়ার মশিউর রহমান মশির ছেলে। এব্যাপারে মামলার একটি অপহরণ মামলা হয়েছে বলেও জানান ওসি। মামলার অন্য আসামীরা হলেন, কোটচাঁদপুর শহরের কাশিপুর গ্রামের মৃত নূর ইসলামের ছেলে কোটচাঁদপুরের চোরাকারবারী ও কথিত পুলিশের সোর্স সেলিম(৪০), বড়বামনদাহ গ্রামের রাজ্জাকের ছেলে মামুন(৩৮), বলুহর কুরিপাড়ার বিশের ছেলে তরিকুল(৩৮) সহ আরও ৪-৫ জনের নাম উল্লেখ করে। ওসি আরও জানান আমরা বাকিদের ধরতে জোরচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*