সেনবাগে সৃজনে উন্নয়ন বাংলাদেশ র‍্যালী ও বর্ণিল আলোক ঝলমলে আয়োজনে সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা

সেনবাগে সৃজনে উন্নয়ন বাংলাদেশ র‍্যালী ও বর্ণিল আলোক ঝলমলে আয়োজনে সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা

জাহাঙ্গীর বাবু ;; সারা বাংলাদেশে সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় সংস্কৃতি মন্ত্রনালয়ের আওয়তায় স্থানীয় প্রশাসনের উদ্যাগে বিশটি জেলায় “সৃজনে উন্নয়ন বাংলাদেশ” স্লোগানকে প্রতিপাদ্য করে উন্নয়ন র‍্যালী,মেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্টানের আয়োজন করছে। ৩০ আগষ্ট ২০১৮ ইং, নোয়াখালী জেলার সেনবাগ উপজেলা প্রশাসন ও আয়োজন করে  সৃজনে উন্নয়ন বাংলাদেশ র‍্যালী,মেলা ও বর্ণিল আলোক ঝলমলে আয়োজনে  সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা।
বিকাল তিনটায় সেনবাগ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শতরুপা তালুকদারের নেতৃত্বে  উপজেলার বিভিন্ন বিভাগীয়  প্রধান,অফিসার,কর্মচারী,আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ, সেনবাগ সরকারী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়,সেনবাগ সরকারী বালিকা বিদ্যালয়,সেনবাগ প্রথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রীদের অংশ গ্রহনে উন্নয়ন র‍্যালী উপজেলা চত্বর থেকে শুরু করে সেনবাগ বাজার প্রদক্ষিন করে উপজেলায় শেষ হয়।সকাল থেকে মেলায় স্টল নেয় সেনবাগ পাঠাগার ও অন্যান্য স্টল।সেনবাগ পাঠাগার বই প্রদর্শনীর পাশাপাশি ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং এর আয়োজন করে।
পড়ন্ত বিকেলে মোটর সাইকেল শোভা যাত্রা নিয়ে সেনবাগ অডিটোরিয়াম প্রাঙ্গনে আসেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি, নোয়াখালী -সেনবাগ, সোনাইমুড়ি আংশিক আসনের সংসদ সদস্য এম পি মোরশেদ আলম,তাকে স্বাগত জানান ইউ এন ও শতরুপা তালুকদার,প্রশাসনিক কর্মকর্তাগন ও স্থানীয় আওয়ামীলীগ এবং এর অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। 
এর পর আসেন নোয়াখালী  নোয়াখালী জেলার পুলিশ সুপার ইলিয়াস শরীফ,বি পি এম,পি পি এম। ইউ এন ও শতরুপা তালুকদারের সভাপতিত্বে শুরু হয় আলোচনা সভা। অতিথিরা সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড  তুলে ধরেন।ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে বক্তব্য রাখেন।
জনাব মোরশেদ আলম এম পি আয়োকদের ভুয়সী প্রসংসা করেন তার উন্নয়ন কর্ম সংক্্ষেপে তুলে ধরেন।এই অনুষ্ঠানে, আওয়ামীলীগ থেকে   সেনবাগের মনোনয়ন প্রত্যাশী সবাইকে আমান্ত্রন জানানো হয়েছিলো কিন্তু কেউ উপস্থিত না হওয়ায় কিঞ্চিত দুঃখ প্রকাশ করেন। প্রথম পর্বের সঞ্চালনায় ছিলেন উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা। ইউ এন ও শতরুপা তালুকদারের সমাপনী বক্তব্যে প্রথম পর্বের সমাপ্তি হয়।
আলোচনা অনুষ্ঠানে অতিথিদের ফুল দিয়ে বরণ ও ক্রেষ্ট প্রদান করা হয়।এম পি মোরশেদ আলম এ সময় পূর্বে ওয়াদা কৃত এক লক্ষ টাকার চেক সেনবাগ প্রেসক্লাবের কল্যান তবিলের জন্য  নেতৃবৃন্দের হাতে তুলে দেন।
দ্বিতীয় পর্বে ছিলো অনুষ্টানের মুল আকর্ষন সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা।সঞ্চালয়নায় ছিলেন সেনবাগ থানার ওসি মিজানুর রহমান।সেনবাগ অডিটোরিয়ামে সাজ,সজ্জা থেকে শুরু করে পুরো অনুষ্টানটি তার তত্বাবধানে হয়,সহযোগীতায় ছিলেন শিল্প কলা একাডেমী সমন্বয়ক,পরিচালক সাংবাদিক এম এ আউয়াল।আলোঝলমলে নান্দনিক সজ্জায় সজ্জিত কাব্যিক অনুষ্টানের উপস্থাপক ওসি মিজানুর রহমানের প্রশংসায় পঞ্চমুখ ছিলেন অতিথি আর উপস্থিত দর্শকবৃন্দ।সাংস্কৃতিক পরিবেশনার মাঝামাঝি আসেন বিশেষ অতিথি নোয়াখালী জেলা প্রশাসক তন্ময় দাস।
সঙ্গীত পরিবেশন করেন,চ্যানেল আই সেরা কন্ঠ শিল্পী শাহীন,পায়েল,সেনবাগ শিল্প কলা একাডেমীর স্বরনিকা,সিয়াম,নৃত্য পরিবেশন করে রাঙ্গামাটি থেকে আগত নৃত্য শিল্পীরা এবং সেনবাগ শিল্পকলার নিয়মিত শিশু,কিশোর নৃত্য শিল্পীরা। এম পি মোরশেদ আলম পুরো অনুষ্ঠান উপভোগ করেন এবং প্রতি গানে,নৃত্যে একক এবং দলীয় প্রত্যেককে নগদ অর্থ সন্মানী প্রদান করেন।
সমাপনী ভাষনের পূর্বে ফটোসেশন হয় মঞ্চে।মঞ্চে আসেন,প্রধান অতিথি এম পি মোরশেদ আলম, বিশেষ অতিথি ডি সি নোয়াখালী তন্ময় দাস,সেনবাগ ইউ এন ও শতরুপা তালুকদার, শিল্পী,কলা কুশলীবৃন্দ,প্রশাসনিক কর্তাদের অনেকে।ডিসি তার বক্তব্যে সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় সকলের সহযোগীতা কামনা করেন,আয়োজকদের সফল অনুষ্ঠান সম্পাদনের জন্য প্রসংসা করেন।
এম পি মোরশেদ আলম উপস্থাপক ওসি মিজানুর রহমানের বহুমুখী প্রতিভার জন্য ভুয়সী প্রসংসা করেন,সেনবাগ শিল্পকলা একাডেমীর জন্য আগামীতে পরিচালক এম আউয়াল ও তার সদস্যদের খেয়াল রাখবেন বলে কথা দেন এবং আগামীতে এর চেয়ে আরো ভালো অনুষ্টান করার প্রতিশ্রুতি দেন। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*