শুরুতে ২ হাজার রোহিঙ্গা ফেরাতে রাজি মিয়ানমার

শুরুতে ২ হাজার রোহিঙ্গা ফেরাতে রাজি মিয়ানমার-উখিয়ার ক্যাম্পে পররাষ্ট্র সচিব
শ.ম.গফুর,উখিয়া(কক্সবাজার)প্রতিনিধি ::  
প্রায় পাঁচ হাজার রোহিঙ্গা প্রথম ধাপে সনাক্ত করেছে মিয়ানমার।তার মধ্যে প্রথম দফায় দুই হাজার রোহিঙ্গা নাগরিককে ফেরত নেবে মায়ানমার। নভেম্বর মাসের মাঝামাঝি সময় থেকে শুরু হবে এই প্রত্যাবর্তন প্রক্রিয়া।বুধবার রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন এবং রোহিঙ্গাদের সঙ্গে আলাপ শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন মায়ানমারের পররাষ্ট্র সচিব মিন্ট থোয়ে।
তিনি জানান, বাংলাদেশ থেকে পাঠানো ৮ হাজার ৩২ জন রোহিঙ্গা নাগরিকের মধ্যে এখন পর্যন্ত প্রায় পাঁচ হাজার জনকে সনাক্ত করা হয়েছে। এদের মধ্যে প্রথম দুই হাজার প্রথম দফায় মায়ানমারে ফিরবেন। এরপর ধারাবাহিকভাবে মায়ানমারের নাগরিক এইসব রোহিঙ্গাদের সেদেশে ফিরিয়ে নেয়া হবে।প্রত্যাবাসন বিষয়ে রোহিঙ্গাদের মাঠ পর্যায়ের অবস্থা জানতে বুধবার সকালে কক্সবাজারের উখিয়া কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে আসেন বাংলাদেশ -মায়ানমার জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের প্রায় ৩০ সদস্যর প্রতিনিধি দল।বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুল হকের নেতৃত্বে বুধবার বেলা সাড়ে ১১ দিকে তারা কুতুপালং ডি-৫ ক্যাম্পে পৌঁছান। সেখানে দুই দফায় রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলেন তারা। দুটিই স্থানে দুই শতাধিক রোহিঙ্গা প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন। নিজ দেশে ফেরত নিতে মায়ানমারে যেসব প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে সেসব বিষয়েও তাদের অবহিত করা হয়।
এসময় রোহিঙ্গা ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার ও প্রত্যাবাসন সম্পর্কিত গঠিত টেকনিক্যাল কমিটির প্রধান মো. আবুল কালাম, জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন, পুলিশ সুপার মো. মাসুদ হোসেন,উখিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো:নিকারুজ্জামান চৌধুরীসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।এর আগে সোমবার ঢাকায় পৌঁছে মায়ানমারের প্রতিনিধি দলটি। রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন মেঘনায় জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের তৃতীয় বৈঠকে অংশ নেন তারা। এতে ঢাকার পক্ষে নেতৃত্ব দেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. শহীদুল হক।মিয়ানমারের ১৬ সদস্যের প্রতিনিধি দলে নেতৃত্ব দেন পররাষ্ট্র সচিব মিন্ট থোয়ে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*