গলাচিপায় পল্টুন আছে, জেটি নেই

গলাচিপায় পল্টুন আছে, জেটি নেই
নিয়ামুর রশিদ শিহাব, গলাচিপা(পটুয়াখালী) সংবাদদাতা : গলাচিপা উপজেলার বোয়লিয়া স্পীডবোট ঘাটে পল্টুন থাকলেও জেটি নেই। দীর্ঘদিন ধরে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হতে হচ্ছে যাত্রীদের। প্রতিদিনই নানা ভোগান্তিতে পরতে হয় শত শত যাত্রীকে। বোয়ালিয়া স্লুইজ খালের তীর থেকে একটি ছোট নৌকার মাধ্যমে যাত্রীরা পল্টুনে ওঠে। এরপর তাদের স্পীডবোটে আরোহন করতে হয়। গত এক বছর ধরে এ অবস্থা চললেও বাংলাদেশ অভ্যন্তরীন নৌ পরিবহণ কর্তৃপক্ষ কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না বলে জানান স্পীডবোটের ঘাটের ইজারাদার ওয়ানা মার্জিয়া নিতু।
ঘাট ইজারাদার সূত্রে জানা গেছে, দ্রুত যোগাযোগের সুবিধার জন্য গলাচিপার বোয়ালিয়া স্লুইজ থেকে রাঙ্গাবালীর কোড়ালিয়ায় স্পীডবোট চলাচলের অনুমতি দেয়া হয়। এতে সার্বিক ভাবে দুই উপজেলার মানুষ বেশ উপকৃত হয়। জেলা সদর পটুয়াখালী ও গলাচিপর সাথে রাঙ্গাবালী উপজেলার যোগাযোগের ‘গেট ওয়ে’ বোয়ালিয়া ও দক্ষিণ পানপট্টি। রাঙ্গাবালী উপজেলা প্রতিষ্ঠিত হলেও এখন পর্যন্ত কোনো উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নির্মিত হয়নি। যার কারণে উপজেলার মানুষ চিকিৎসা সেবার জন্য এখনও গলাচিপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উপর নির্ভরশীল। স্পীডবোটের মাধ্যমে যোগাযোগ ব্যবস্থা চালু হওয়ায় খুব দ্রুত গুরুতর অসুস্থ রোগীদের চিকিৎসা সেবার জন্য গলাচিপা আনা সম্ভব হয়। বিশেষ করে প্রসূতি মায়েদের জীবনের ঝুঁকি অনেকটা কমে গেছে বলে অনেকে জানান।
ঘাটের সুপাভাইজার আনোয়ার হোসেন মন্টু মিয়া জানান, জেটি না থাকার কারণে ছোট নৌকার মাধ্যমে যাত্রীদের পল্টুনে আহরোণ করতে হয়। এতে বৃদ্ধ, নারী ও শিশুদের বেশ দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এ দুর্ভোগ লাঘবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য কর্তৃপক্ষ বরাবরে আবেদন করা হলেও এখন পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*