বগুড়ায় অনুষ্ঠানে লোকের সমাগম না হওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে ৩ সাংবাদিককে লান্ছিত করে প্রকাশ্যে পেটালেন সংসদ সদস্য!!

বগুড়ায় অনুষ্ঠানে লোকের সমাগম না হওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে ৩ সাংবাদিককে লান্ছিত করে প্রকাশ্যে পেটালেন সংসদ সদস্য!!

বগুড়া সংবাদদাতা:- বগুড়ায় এবার তুচ্ছ ঘটনায় প্রকাশ্য জনসম্মুখে শিবগঞ্জের মহাস্থান প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও মহাস্থান উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির অবিভাবক সদস্য সাইদুর রহমান সাজু সহ অপর ২জন সাংবাদিককে লান্ছিত করা সহ পিটিয়ে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ও তার ছেলে । ন্যাক্কারজনক ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরের বগুড়ার শিবগঞ্জের মহাস্থান এলাকায় । প্রত্যক্ষদর্শী ও ভুক্তভোগী সাংবাদিকরা জানান, গতকাল বেলা আনুমানিক ২টার দিকে পূর্ব ঘোষিত এক কর্মসূচিতে মহাস্থান উচ্চ বিদ্যালয়ের চতুর্থ তলা একাডেমীক ভবনের ফলক উম্মোচন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে স্থানীয় শিবগঞ্জ নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য ও জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি শরিফুল ইসলাম জিন্নাকে প্রধান অতিথি হিসাবে আমন্ত্রন করা হয় । বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, তার জৈষ্ঠ পুত্র হুসাইন শরিফ সঞ্চয়। অনুষ্ঠানে সভাপতি ছিলেন, অত্র বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও এমপির ভগ্নীপতি বীর মুক্তি যোদ্ধা রফিকুল ইসলাম দুলাল সহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ। সূত্র জানায়, মহাস্থান উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির দায়িত্বে রয়েছেন উল্লেখিত এমপির ভগ্নীপতি বীর মুক্তি যোদ্ধা রফিকুল ইসলাম দুলাল । প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির অবিভাবক সদস্য হিসাবে রয়েছেন সাংবাদিক সাইদুর রহমান সাজু । ফলক উম্মোচনী আয়োজন এর দায়িত্বে ছিলেন কমিটির সভাপতি ও স্কুলের প্রধান শিক্ষক। গতকাল(বৃহস্পতিবার) বেলা ২টার দিকে সংসদ সদস্য ও আমন্ত্রিত প্রধান অতিথি শরিফুল ইসলাম জিন্না তার লোকজন নিয়ে অনুষ্ঠানে পৌছলে সেখানে লোকজনের উপস্থিতির ভাটা দেখে ক্ষুব্দ হন। এর এক পর্যায়ে তিনি তার বক্তব্য শেষ করে স্টেজ থেকে নেমে এলে সামনে সাংবাদিক সাজুকে দেখতে পেয়ে ক্ষুব্ধ হন এবং তিনি তার ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করে সাংবাদিক সাজুর কলার চেপে ধরে তাকে টেনে হিচরে নিয়ে যেতে থাকেন । তিনি আবারো সাংবাদিক সাজুকে জন সম্মুখে চর থাপ্পর মারতে থাকেন । তিনি মনে করেন সাংবাদিক সাজু এজন বিরোধী ঘড়ানা পত্রিকার সাংবাদিক ও সমর্থক। যে কারনে সঠিক ভাবে দাওয়াত পত্র বিতরন করা হয়নি, যে কারনে তার অনুষ্ঠানে লোকজনের সমাগম কায়েম হয়নি । এসময় উপস্থিত জনতা একজন অনির্বাচিত এমপি তার ছেলের এহেন ভূমিকা দেখে হতভম্ব হয়ে পড়েন । এদিকে পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে এমপি ও তার পুত্রের কার্যকলাপ ক্যামেরা বন্ধি করার সময় নূরন্নবী ও সূমন নামের অপর দুই সাংবাদিকের উপর হামলা চালায় এমপি পুত্র ও তার লোকজন । এসময় তাদের ক্যামেরা সহ আটক সাজুর ভিভিও ক্যামেরা মোবাইল ফোন কেড়ে নেয়া হয় । পরে তাদের চড় থাপ্পর মারতে মারতে টেনে হিচরে নিয়ে যাওয়া হয় । এক পর্যায়ে সাংবাদিক সাজুকে স্থানীয় একটি কক্ষে আটক রেখে তার উপর নির্যাতন চালিয়ে আবারো তাকে মারধোর করে এমপির ছেলে হোসেন শরিফ সঞ্চয় । প্রধান অতিথি এসময় বিদ্যালয়ের সভাপতি, শিক্ষক/শিক্ষীকা ও কমিটির অন্যান্য সদস্যদেরকে কট্রোর ভাষা প্রয়োগ করে তাদের ভৎসনা করেন। স্থানীয়দের অভিযোগ, এসময় ক্যামেরায় এ ঘটনা ধারন করায় মারধোরের শিকার হন স্থানীয় সাংবাদিক সূমন ও নূরন্নবী। পরবর্তিতে এসংবাদ লেখা পর্যন্ত জানা যায় সাংবাদিক সুমন ও সাজু সঞ্চয়ের সাথে যোগাযোগ করে ঘটনার প্রায় ৩/৪ ঘন্টা পর মেমোরি ছাড়াই তাদের মোবাইল ও ক্যামেরা ফেরত দেয় এবং অনাঙ্খিত ঘটনার জন্য সাজু ও সুমনের কাছে সঞ্চয় ও ফজলুল হক দুঃখ প্রকাশ করে। এদিকে এঘটনাকে কেন্দ্র করে গোটা এলাকায় তীব্র অসন্তোষ সৃষ্টি হয়েছে । স্থানীয় জনতার অভিযোগ জনতার ভোটে নির্বাচিত হলে একজন সংসদ সদস্য কখনোই এধরনের আচরন করতে পারতোনা বলে তাদের বিশ্বাস । অন্যদিকে পেশাগত দায়িত্ব পালনরত অবস্থায় একজন সংসদ ও তার পুত্রের এধরনের আচরনে গোটা সাংবাদিক মহলে তীব্র অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। বিষয়টি শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলমগী কবির ও শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (সার্বিক) মিজানুর রহমানকে মোবাইলে মহাস্থান প্রেস ক্লাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। এব্যপারে উল্লেখিত সংসদ কিম্বা তার প্রতিনিধির সাথে যোগাযোগ করে তাদের পাওয়া যায়নি। রাতে শেষ খবর পর্যন্ত সংসদ সদস্যর পক্ষের লোকজন ঘটনার আপোষ মিমাংশার চেষ্টা চালিয়ে লান্ছিত সাংবাদিকদের উপর প্রভাব চালানো হচ্ছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*