এমপি ফারুকের প্রচেস্টায় কৃষিতে অভাবনীয় সাফল্য

এমপি ফারুকের প্রচেস্টায় কৃষিতে অভাবনীয় সাফল্য

সারোয়ার হোসেন,তানোর: রাজশাহীর তানোরে স্থানীয় সাংসদ, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, (সাবেক) শিল্প প্রতিমন্ত্রী, কুষিবিদ ওমর ফারুক চৌধূরীর দিকনির্দেশনা ও প্রচেস্টায় আওয়ামী লীগের প্রায় ১০ বছরে কৃষিক্ষেত্রে অপ্রত্যাশিত, দৃশ্যমান ও নজর কাড়া উন্নয়ন হয়েছে। জানা গেছে, স্থানীয় সাংসদ ওমর ফারুক চৌধূরী নিজে এক জন কৃষিবিদ কৃষি সম্পর্কে তার ব্যাপক জ্ঞান রয়েছে। এছাড়াও জনপ্রতিনিধি হিসেবে তিনি কৃষিক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখায় এবং বৃক্ষরোপণে রাস্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণ পদক অর্জন করেছেন তাঁর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় কৃষিক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নয়ন ও সাফল্য অর্জিত হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, তানোরে বিগত ২০০৬-০৭ অর্থবছরে উপজেলা কৃষি অফিসে জনবল ছিল ক্যাডার কর্মকর্তা ৩ জন, এএইও ১ জন, এসএপিপিও ১ জন ও এএসএএও ১৬ জন এসব কর্মকর্তা-কর্মচারিদের এক মাসের মোট বেতন-ভাতা ছিল ৩ লাখ ২৮ হাজার টাকা। এছাড়াও নিজস্ব ভবন, কৃষক প্রশিক্ষিণ কেন্দ্র, যানবাহন, ইন্টারনেট সংযোগ ও সৌর বিদ্যুৎ ছিলনা ও বাৎসরিক কৃষি উপকরণের প্রাপ্যতা ছিল ইউরিয়া ৯ হাজার ১৩৪ মেট্রিকটন, নন ইউরিয়া ৫ হাজার ২৭ মেট্রিক টন ও মান সম্মত বীজ উৎপাদন ৬২০ মেট্রিক টন। কৃষি ঋণ প্রাপ্তিতে কৃষককে সহায়তা কর্মসূচি ছিল না। কৃষি উপকরণ সহায়তা কার্ড বিতরণ ছিল না ও বীজের প্রাপ্যতা ঘাটতি ছিল এবং কীটনাশক দোকানের সংখ্যা ছিল ১৭৪টি। সারের মূল্য প্রতি কেজি ছিল ইউরিয়া ২২ টাকা, টিএসপি ৭৫ টাকা, ডিএপি ৯০ টাকা ও এমওপি ৬০ টাকা। ভূর্তুকিতে ও বিনামূল্য কৃষি যন্ত্রপাতি বিতরণ ছিল না। অপরদিকে আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ে কুষিক্ষেত্রে প্রায় চার গুন বরাদ্দ বৃদ্ধি করা হয়েছে। এর মধ্যে ক্যাডার কর্মকর্তা ৪ জন, এএইও ১ জন, এসএপিপিও ১ জন,এসএএও ২৪ জন এসব কর্মকর্তা-কর্মচারির এক মাসের বেতন-ভাতা বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে ১০ লাখ ৩৬ হাজার টাকা। এছাড়াও নিজস্ব ভবন, আধূনিক কৃষক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, একটি ডাবল কেবিন পিকআপ , বড্রব্যান্ড কানেকশন ও সৌর বিদ্যুৎ দেয়া হয়েছে। এছাড়াও এখন বছরে কৃষি উপকরণের প্রাপ্যতা ইউরিয়া ৮ হাজার ৪৯৪ মেট্রিকটন, নন ইউরিয়া ১২ হাজার ২৩০ মেট্রিকটন এবং বছরে মান সম্মত বীজ উৎপাদন ২৩১০ মেট্রিকটন। অন্যদিকে স্বল্প সুদে কৃষি ঋণ সহায়তা ২২৭ জন, কৃষি উপকরণ সহায়তা কার্ড বিতরণ ৩০ হাজার ৪৫৫টি বর্তমানে বীজের প্রাপ্যতায় ঘাটতি নাই ও কীটনাশকের দোকান বেড়ে হয়েছে ৩২৮টি। অন্যদিকে সারের ভূর্তৃকি বেড়েছে ২২ টাকা কেজির ইউরিয়া ১৬ টাকা, ৭৫ টাকা কেজির টিএসপি ২২ টাকা, ৯০ টাকার ডিএপি ২৫ টাকা ও ৬০ টাকা কেজির এমওপি ১৫ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। অন্যদিকে ১০ লাখ ৫৭ হাজার টাকা ব্যয়ে ভূর্তুকিতে কৃষি যন্ত্রপাতি ২০টি পাওয়ার ট্রিলার, ১টি রিপার, ৩০টি ফুট পাম্প ও ১৯টি পাওয়ার থ্রেসার বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়াও ২০ লাখ ৯০ হাজার টাকা ব্যয়ে বিনামূল্য একসেট ৫টি কৃষি যন্ত্রপাতি, হ্যান্ড ¯েপ্রয়ার ১২৭টি ও ৭টি ফুট পাম্প কৃষকদের মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে। উপজেলায় প্রায় ৮০ হাজার টাকা ব্যয়ে ৩০ হাজার ৬৩৮টি কৃষক পরিচিতি কার্ড কৃষকের মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে। অন্যদিকে আউশ চাষে কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করতে বিনামূল্য কৃষি প্রণোদনা উফশী আউশ প্রতি বিঘায় বীজ ৫ কেজি, ইউরিয়া ২০ কেজি, ডিএপি ১০ কেজি, এমওপি ১০ কেজি ও সেচ খরচ বাবদ ৪০০ টাকা। আর নেরিকা আউশ বীজ ১০ কেজি, ইউরিয়া ২০ কেজি, ডিএপি ১০ কেজি, এমওপি ১০ কেজি এবং সেচ-নিড়ানী বাবদ ৮০০ টাকা প্রদান করা হয়েছে। এছাড়ও সরকার সারে প্রতি কেজি ইউরিয়ায় ৪ টাকা, ডিএপিতে ৬৫ টাকা, এমওপিতে ৫৫ টাকা ও টিএসপিতে ৫৮ টাকা ভূর্তুকি দিচ্ছেন। অন্যদিকে ধান উৎপাদনে বাংলাদেশ ৪র্থ তম, পাট উৎপাদনে ২য়, পাট রপ্তানিতে প্রথম, সবচি উৎপাদনে ৩য়, আম উৎপাদনে ৭ম, আলু উৎপাদনে ৮ম, পেয়ারা ইৎপাদনে ৮ম, রসুন উৎপাদনে ৬ষ্ঠ, চা উৎপাদনে ৪র্থ ও ফল উৎপাদনে বাংলাদেশ ২৮তম স্থানে রয়েছে। এছাড়াও বাংলাদেশ শ্রীলংকায় ৫ লাখ মেট্রিক টন চাউল রপ্তানি ও ভূমিকম্পের সময় নেপালে ৪ হাজার মেট্রিকটন চাউল সহায়তা, রাশিয়ায় প্রায় ৫ লাখ মেট্রিকটন আলু ও সিঙ্গাপুর-নেপাল-মালেশিয়া ও শ্রীলংকায় আলু রপ্তানি করছে। এছাড়াও রাজশাহী থেকে প্রায় ৩৫ মেট্রিকটন আম ইউরোপে রপ্তানি ও মধ্যপ্রাচ্যর বিভিন্ন দেশে সবজি রপ্তানি করছে। এব্যাপারে তানোর উপজেলা কুষি কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম বলেন, আওয়ামী লীগ যে কৃষি বান্ধব সরকার এসব কৃষি বান্ধব কর্মসূচির মধ্যদিয়ে তা প্রমাণ হয়েছে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের প্রায় ১০ বছরে কুষিখাতে প্রায় এক-চতুর্থাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*